বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো? (১০ টি সেরা সাবান)

পোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

4.7/5 - (3 votes)

বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো এই প্রশ্নটি অনেক মায়ের কাছে থেকেই শোনা যায়। আপনার যদি সদ্য জন্ম নেয়া একটি বাচ্চাশিশু থাকে এবং আপনি তার শরীরের যত্ন সঠিকভাবে নিতে চান তবে অবশ্যই বাচ্চার শরীরের জন্য কোন সাবান উত্তম এটি জানতে হবে।

আজকের এই পোস্টে আপনাদের সাথে বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো এবং বাচ্চাদের জন্য সেরা যেসব সাবান রয়েছে, সেগুলো নিয়ে আলোচনা করবো। এছাড়াও, কোন সাবান বাচ্চাদের শরীরের জন্য উপকারী এবং কোন সাবানগুলো ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে এসব বিষয়ও জানতে পারবেন পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়লে।

তো চলুন, বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো জেনে নেয়া যাক।

বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো

কোন প্রোডাক্ট ব্যবহার করলে বাচ্চার কোনো ক্ষতি হবে না সেটা নিয়ে সকল মায়েরাই দুশ্চিন্তায় ভোগে। বাচ্চার জন্য সঠিক প্রোডাক্ট বেছে নিতে গিয়ে নানা দ্বিধাদ্বন্দ্বের সম্মুখীন হয়। যেহেতু, বাচ্চারা স্পর্শকাতর ও নাজুক তাই তারা সহজেই সংক্রমিত ও অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। তাই বাচ্চার জন্য সঠিক ও ব্যবহারযোগ্য পণ্য নির্বাচন করা জরুরি।

বাচ্চারা আমাদের মতো যে কোনো সাবান/শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারবে না। এর কারন হলো নরমাল সকল সাবানে অল্প বা অধিক মাত্রায় ক্ষার মেশানো থাকে। এতে করে আপনার বাচ্চার ত্বকের নানা ক্ষতি হতে পারে যেমন ত্বকের লাল হয়ে যাওয়া, গোটা বা ফুসরি হওয়া ইত্যাদি। তাই অবশ্যই তাদের জন্য ভালো এবং মানসম্মত বেবি প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে হবে।

চলুন জেনে নেয়া যাক বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো এবং বাচ্চাদের জন্য সেরা ১০ টি সাবানের নাম।

বাচ্চাদের জন্য সেরা ১০ টি সাবান

বড়দের তুলনায় বাচ্চাদের ত্বক অনেক কোমল হয়। এছাড়াও বাচ্চাদের ত্বকে জীবাণু সংক্রমনের ঝুঁকি বেশি থাকে। এজন্য আমরা আপনার বাচ্চাদের জন্য সেরা ১০টি সাবানের তালিকা তৈরি করেছি। সেগুলো নিচে দেওয়া হলো –

  • Johnson’s baby soap
  • Himalaya baby soap
  • Azafran baby nourishing soap
  • Baby dove rich moisture soap
  • Tedibar Soap
  • MeeMee nourishing baby soap
  • Doy Natural Milk Cream & shea butter soap
  • Lotus Herbel Baby Soap
  • Dermadew Baby Soap
  • Chicco Baby Monents Soap

চলুন, এবার এই সেরা ১০টি সাবান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

Johnson’s baby soap

এটি অনেক বিখ্যাত একটি কোম্পানি। এটি আপনার শিশুর ত্বককে আলতো এবং পরিষ্কার করবে। এছাড়াও শিশুর ত্বককে শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষা করে ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে। বাচ্চাকে গোসল করানোর সময় বাচ্চার মুখ সহ পুরো শরীরে ব্যবহার করতে পারবেন। বাচ্চাদের জন্য সেরা সাবাগুলোর মাঝে Johnson’s এর বেবি সোপগুলো অনেক জনপ্রিয়।

Himalaya baby soap

বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো

হিমালয়ার এই সবানটি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান দ্বারা তৈরি। নিম এবং হলুদের সমস্ত গুণাগুণ একত্রিত করে তৈরি করা হয় এই সাবানটি। নিম ত্বককে শুস্ক হওয়া থেকে রক্ষা করে থাকে। হলুদে শক্তিশালী অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি রয়েছে, যা আপনার বাচ্চার ত্বককে কোমল করতে সাহায্য করবে। এটি বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরীক্ষিত এবং আপনার বাচ্চার জন্য সুরক্ষিত। বাচ্চাদের জন্য ভালো সাবান খুঁজে থাকলে এটি ব্যবহার করতে পারেন।

Azafran baby nourishing soap

এই সাবানটি গোসল করার সময় আপনার শিশুর শুষ্ক ত্বক মসৃণ করবে। নারকেল তেল, অলিভ অয়েল, সয়া মাখন এবং সয়া মোমের মতো উপাদানগুলি দিয়ে আপনার শিশুর ত্বককে পরিপুষ্ট করতে এই সবানটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে যা একসঙ্গে ত্বককে আলতোভাবে পরিষ্কার করে এবং আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।

📌 আরো পড়ুন 👇

এটি ক্লিনিক্যালি পরীক্ষিত এবং নিয়মিত ব্যবহার আপনার ছোট্ট সোনামনির ত্বককে নরম, মসৃণ এবং মসৃণ রাখতে সাহায্য করবে।

Baby dove rich moisture Soap

সাধারণ শিশুর সাবানগুলির তুলনায় এটি মৃদু এবং পুষ্টিকর। ডাভ কোম্পানিরl দাবি করেন যে তাদের সকল পণ্য বিশেষ চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ দ্বারা ১০০% পরীক্ষিত। এই সবানটির pH- মাত্রা নিরপেক্ষ। তাই এটি আপনার বাচ্চার কোনো প্রকার ক্ষতি করবে না। নবজাতকের জন্য উপযুক্ত এবং একজিমা প্রবণ ত্বকের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

Tedibar Soap

বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো

নবজাতক দের জন্য টেডিবার ভালো মানের একটি সাবান হিসেবে পরিচিত। এটি একটি মৃদু ক্লিনজার হিসেবে কাজ করে যা আপনার বাচ্চার ত্বককে নরম ও কোমল রাখে। যেহেতু বাচ্চাদের ত্বকের বিশেষ যত্ন প্রয়োজন। তাই টেডিবার সংবেদনশীল ত্বকের জন্য শিশু বিশেষজ্ঞের নির্দেশিত ময়শ্চারাইজিং বার। আপনি ও যদি আপনার বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো নিয়ে দুশ্চিন্তা করছেন তবে এই সাবানটি নিশ্চিতে ব্যবহার করতে পারবেন।

MeeMee nourishing baby soap

অনেক সময় বাচ্চাদের মাথায় ও শরীরে র‍্যাশ হয়। MeeMee nourishing সাবান ব্যবহার করলে এই সাবানে থাকা উপাদানের কারণে মাথায় এবং শরীরে হওয়া র‍্যাশ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এই সাবানটিতে অনেক উপকারী উপাদান রয়েছে যা বাচ্চাদের শরীরের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ করেই তৈরি করা হয়েছে।

ফলে, আপনি এই সাবানটি নিশ্চিন্তে আপনার বাচ্চার গোসল করার সময় ব্যবহার করতে পারেন। বাচ্চার শরীরে কোনো প্রকার রোগ-জীবাণু আক্রমন করতে পারবে না এবং ত্বক থাকলে কোমল ও মসৃণ সর্বদা।

Doy Natural Milk Cream & shea butter soap

এই সাবানটি বিশেষ করে বাচ্চাদের জন্য তৈরি। বাচ্চার ত্বকের পিএইচ মান এবং আরও বিভিন্ন বিষয়ের চিন্তা করে চিন্তা করা হয়েছে। ফলে, একটি বাচ্চার ত্বকে যেসব সমস্যা হয়ে থাকে, এগুলো থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব এই সাবানটি ব্যবহার করে।

বাচ্চার ত্বক শুস্ক হলে এবং কোনো র‍্যাশ হলে এই সাবানটি ব্যবহার করতে পারেন।

Lotus Herbel Baby Soap

বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো

Lotus Herbel বেবি সাবান প্রাকৃতিক সব উপাদান দিয়ে তৈরি যা শিশুদের ত্বকের জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে। এটিতে কোনও ক্ষতিকারক রাসায়নিক বা সুগন্ধি নেই এবং এটি শিশুদের ত্বকের pH ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। ফলে, আপনি এই সাবানটি ব্যবহার করে শিশুকে গোসল করাতে পারেন।

📌 আরো পড়ুন 👇

শিশুর ত্বক থাকবে কোমল এবং মসৃণ। কোনো ধরণের রোগ জীবাণু আক্রমন করতে পারবে না।

Dermadew Baby Soap

Dermadew Baby Soap এ পাম এবং নারকেল তেল, হলুদ তেল, জলপাইয়ের নির্যাস, শিয়া মাখন, অ্যালোভেরার নির্যাস, কোকুম মাখন, গ্লিসারিন, বাদাম তেল, দুধের প্রোটিন এবং গমের প্রোটিনের মতো অনেক কার্যকরী উপাদান রয়েছে। এসব উপাদান দিয়ে তৈরি সাবান আপনার বাচ্চার শরীরে ব্যবহার করলে বাচ্চার ত্বক স্বাভাবিকের থেকে অনেক কোমল থাকবে এবং শুস্ক হওয়া থেকে রক্ষা করতে পারবেন।

Chicco Baby Monents Soap

এই সাবানটিতে 0% ফেনোক্সিথানল, প্যারাবেনস এবং ট্রপোলোন আছে। সাবানটি প্রতিদিন ব্যবহারে শিশুর ত্বক নরম এবং ময়শ্চারাইজিং করে তোলে। বাচ্চাদের জন্য ভালো সবানগুলোর মাঝে এটি ও একটি।

উপরোক্ত সাবানগুলোর মধ্যে যেকোনো একটি সাবান ব্যবহার করলে আপনার বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো হবে এই দুশ্চিন্তা থেকেও চিরতরে মুক্তি পেয়ে যাবেন। যেহেতু ১-৫ বছরের সময়কালীন অবস্থায় বাচ্চাদের ত্বক পরিপুষ্ট হয় তাই এই সময় বাচ্চাদের শরীরে ব্যবহৃত নিত্যপ্রয়োজনীয় উপাদান সঠিক হতে হবে। উপরোক্ত এই সাবানগুলো ১-৫ বছরের সকল বাচ্চাদের জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

বাচ্চাদের সাবান ব্যবহারের নিয়ম

বাচ্চাদের ত্বকে সাবান ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমরা নানা ধরনের ভুল করে থাকি। যা আমাদের বাচ্চাদের ত্বকে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু সংক্রমণ হতে পারে। এজন্য বাচ্চাদের ত্বকে সাবান ব্যবহার করার সময় কিছু নিয়ম এবং সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। এজন্য নিম্নে বাচ্চাদের ত্বকে সাবান করার কিছু টিপস দেওয়া হলো –

  • বাচ্চাদের ত্বকে গরম পানির পরিবর্তে হালকা গরম পানি ব্যবহার করুন। কেননা গরম পানিতে ত্বকের শুষ্কতা বৃদ্ধি করে। তবে রোদে পানি গরম করে নেওয়া সব থেকে উত্তম।
  • বাচ্চাদের শরীরে সাবান ব্যবহার করার সময় ফেনা করে ব্যবহার করুন।
  • সাবান ব্যবহারের পর তা ভালোভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে। কেননা তাকে অবশিষ্ট সাবান রয়ে গেলে পরবর্তীতে জ্বালাপোড়ার সৃষ্টি হতে পারে।
  • গোসলের পর বাচ্চার ত্বকে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। এর ফলে ত্বকের শুষ্কতা রোধ পাবে।
  • বাচ্চার ত্বকে যদি এলার্জি বা কোন প্রকারের সংক্রমণ থাকে, তাহলে সাবান ব্যবহার না করাই ভালো। এক্ষেত্রে আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।

বাচ্চাদের শরীরে সাবান ব্যবহারের সময় উক্ত টিপস গুলো মেনে চললে, আশা করা যায় কোন সমস্যা হবে না।

বাচ্চাদের সাবান নিয়ে কিছু কথা

শিশুকে গোসল করানোর সময় বড়দের ব্যবহৃত সাবান ব্যবহার করা যাবে না। কারণ এসব সাবানে ছোটদের ত্বকের তুলনায় অনেক বেশি ক্ষারীয় উপাদান থাকে যা শিশুদের ত্বকের ক্ষতির কারণ হতে পারে। শিশুর ত্বক পরিষ্কার রাখতে সাবান ব্যবহারের সময় সতর্ক থাকতে হবে। গ্লিসারিনযুক্ত সাবান শিশুদের জন্য ভালো। এ ছাড়া যেসব সাবানের পিএইচ মাত্রা শিশুর ত্বকের পিএইচ মাত্রার সমান, সেসব সাবান শিশুর ত্বকের জন্য সবচেয়ে উপযোগী।

যেহেতু ছোট বাচ্চাদের ত্বক খুব সেনসিটিভ হয় তাই তাদের প্রতি মায়েদের যত্নশীল হতে হবে। এছাড়াও সাবান ব্যবহারের পূর্বে আরো কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। যেমন- বাচ্চাদের হাতে সাবান না দিয়ে নিজেই বাচ্চাকে গোসল করাতে হবে যেন সাবান খেয়ে না ফেলে। কারণ সাবান শুধুমাত্র বাহ্যিক ব্যবহারের জন্য।

বাচ্চাদের সাবান সম্পর্কে আমাদের মতামত 

আশা করি বাচ্চাদের জন্য কোন সাবান ভালো পোস্টটি পড়ে আপনারা উপকৃত হয়েছেন। বাচ্চার ত্বকের যত্ন নেয়ার জন্য এবং রোগ-জীবাণু থেকে বাচ্চাকে সুরক্ষিত রাখার জন্য উপরে উল্লিখিত সাবানগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

বাচ্চাদের সাবান সম্পর্কে যদি প্রশ্ন থেকে থাকে, তাহলে কমেন্ট করুন। আমরা আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। এতক্ষন ডিয়ার টেক ব্লগের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


পোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment